ইউরোপে লাখো মানুষের জীবন বাঁচিয়েছে লকডাউন

25

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে ইউরোপে লকডাউন দেওয়ায় প্রায় ৩০ লাখের বেশি মানুষের জীবন বেঁচে গেছে। যদি লকডাউন দেওয়া না হতো তাহলে মানুষের মৃত্যু আরো বেশি হতো।

লন্ডন ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষক দলের গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে। গবেষকরা বলছেন, এখনই লকডাউনের বিধিনিষেধ শিথিল করা মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হবে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষকদল সর্তক করে বলছে, মোট জনগণের ছোট একটা অংশ সংক্রমিত হয়েছে। আমরা এখনো মহামারির প্রথম দিকে রয়েছি।

যদি লকডাউন না হতো তবে কত সংখ্যক মানুষ মারা যেত তা অনুমান করতে গবেষকরা ডিজিজ মডেলিং ব্যবহার করেছেন।

গবেষকরা অনুমিত হিসেবে দেখিয়েছেন ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে মে মাসের ৪ তারিখ পর্যন্ত ৩ দশমিক দুই মিলিয়ন মানুষ মারা যেত। তার মানে লকডাউনে প্রায় ৩ দশমিক এক মিলিয়ন মানুষের জীবন বেঁচেছে।

মে মাসের শুরু পর্যন্ত লকডাউনে যাওয়া ১১টি দেশের পরিস্থিতি মূল্যায়ন করেছেন ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষকরা।

এই দেশগুলো হলো- অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, নরওয়ে, স্পেন, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড এবং যুক্তরাজ্য।

গবেষকদলের অন্যতম ডা. ফ্লাক্সম্যান বলেন, ‘আমরা করোনা ভাইরাসের সূচনালগ্নে আছি। এখনো আমাদের মধ্যে ইমিউনিটি সেভাবে তৈরি হয়নি। প্রত্যেক দেশের মাত্র ৩ থেকে ৪ শতাংশ আক্রান্ত হয়েছে। লকডাউনের মাধ্যমে ইউরোপের দেশগুলোর ৩০ লাখ মানুষ মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে।’

ইত্তেফাক/জেডএইচ